মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১, ০৯:১৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
শরীয়তপুরে নির্বাচনের কাজ শেষে ফেরার পথে প্রাণ হারালেন প্রার্থীর বোনজামাই নড়িয়ায় আওয়ামীলীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী এ্যাড. আবুল কালাম আজাদের নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা এ্যাড. এনামুল হক আংগারিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে বিএনপি’র মনোনয়ন প্রত্যাশী আমির হোসেন শিকদার শরীয়তপুর পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডে পুনরায় কাউন্সিলর নির্বাচিত শরীয়তপুর পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়র এ্যাড. পারভেজ রহমান জন’কে শরীয়তপুর জেলা জাতীয় শ্রমিকলীগ নেতা আব্দুল মান্নান মোল্যা’র শুভেচ্ছা শরীয়তপুর পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের নবনির্বাচিত কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর বোপারীকে শরীয়তপুর জেলা জাতীয় শ্রমিকলীগের আহবায়ক ওয়াদুল সরদারের শুভেচ্ছা খেলাধুলা সুস্থতা ও সুখ দেয়: চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আনোয়ার হোসাইন খান শরীয়তপুরের ইসরাত জাহান ইমা সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষক সাংবাদিক শাওন-আখি দম্পত্তির পথচলার ১৪ বছর ! হাজ্বী ফরিদ শেখ শরীয়তপুর পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নির্বাচিত
শুরু হলো ইংরেজি নতুন বছর ২০২১

শুরু হলো ইংরেজি নতুন বছর ২০২১

আতশবাজির আলোকচ্ছটায় শুরু-২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক :
করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) পরিস্থিতিতে পুলিশের আরোপ করা বিধিনিষেধ ছিল। তারপরও বর্ষবরণের উদযাপনে মেতে উঠেছে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশ। ঘড়ির কাঁটা রাত ১২টা স্পর্শ করামাত্রই ‘হ্যাপি নিউ ইয়ার’ চিৎকার ছড়িয়ে পড়েছে দিকে দিকে। একইসঙ্গে বাইরে জমায়েত না করতে পারলেও বাড়ির ছাদ থেকে ছুঁড়ে দেওয়া আতশবাজির আলোকচ্ছটায় রাঙিয়ে শুরু হলো গ্রেগরিয়ান বর্ষপঞ্জির নতুন বছর ২০২১। একইসঙ্গে ঢাকার আকাশে উড়তে দেখা গেছে ফানুসও।

খ্রিষ্টীয় এই নববর্ষকে ঘিরে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) পক্ষ থেকে ছিল বিভিন্ন ধরনের বিধিনিষেধ। আতশবাজি ফোটানোতেও ছিল নিষেধাজ্ঞা। তবে সেই নিষেধাজ্ঞা মানেনি কেউ। রাজধানীর টিকাটুলি থেকে শুরু করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা, তেজগাঁও, ধানমন্ডি, গুলশান, বনানী, উত্তরা— সবখানেই আকাশ আলোকিত হয়েছে আতশবাজির আলোয়। তার শব্দেও ২০২১ সাল জানান দিয়েছে— আমি এসেছি।

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, নববর্ষের উদযাপন অনেকটাই সীমাবদ্ধ ছিল ঘরে। বাইরে বের হতে না পেরে মানুষজন রাত ১২টা বাজার আগে থেকেই জড়ো হতে থাকেন বাড়ির ছাদে ছাড়ে। নতুন বছর শুরু হতে না হতেই শুরু হয় তাদের উদযাপন। আতশবাজি, ফানুসের সঙ্গে সঙ্গে কোথাও কোথাও সাউন্ডবক্সে বেজেছে গানও।

রাজধানীর উত্তরা এলাকার বাসিন্দা মাহমুদুর রহমান নববর্ষ উদযাপন করতে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ছিলেন বাসার ছাদে। তিনি যে বাড়ির ভাড়াটিয়া, সেখানকার অন্যান্য ফ্ল্যাটের অধিবাসীরাও তখন ছাদেই ছিলেন। মাহমুদুর বলেন, করোনা সংক্রমণের কারণে বড় কোনো আয়োজন তো নেই। কিন্তু নতুন বছরকে তো বরণও করতে হবে। তাই সবাই মিলে ছাদে এসেছি। পুলিশের নিষেধাজ্ঞার কারণে বাড়ির ছোটদের আবদারে আতশবাজি কেনা হয়নি। কিন্তু আশপাশের অনেক বাড়ির ছাড়েই আতশবাজি ফুটতে দেখেছি।

তেজগাঁও নাখালপাড়ার বাসিন্দা মো. বশির জানালেন, কেবল বাড়ির ছাদে নয়, বর্ষবরণের মুহূর্তে রাস্তাতেও ছিল তরুণদের আনাগোনা। এই এলাকাতেও বিভিন্ন বাড়ির ছাদ থেকে উড়েছে আতশবাজি। কোনো কোনো বাড়িতে বাজছে গান।

বর্ষবরণের এই রাত তথা ‘থার্টি ফার্স্ট নাইট’কে ঘিরে অবশ্য ব্যাপক বিধিনিষেধ আরোপ করেছিল ডিএমপি। সন্ধ্যার পর থেকে সীমিত করা হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় যানচলাচল। গুলশান-বনানী এলাকায় নেওয়া হয় কড়া নিরাপত্তা। এসব এলাকায় রাত ৮টার পর বহিরাগত প্রবেশ রীতিমতো নিষিদ্ধ করা হয়।

 

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Comments are closed.




© All rights reserved © 2019 Lalsabujnews24.Com
Desing & Developed BY Kazi Jahir Uddin Titas::01713478536